যুক্তরাষ্ট্রে প্রবাসী বাংলাদেশীদের ঈদ-উল-আযহা উদযাপন ও কুরবানী

Washington Bangla
By Washington Bangla September 3, 2017 14:59

যুক্তরাষ্ট্রে প্রবাসী বাংলাদেশীদের ঈদ-উল-আযহা উদযাপন ও কুরবানী

রফিকুল ইসলাম আকাশ, ওয়াশিংটন ডিসি : লাব্বাইক আল্লাহুম্মা লাব্বাইক লাব্বাইকা, লা শারিকা লাকা, লাব্বাইক  ইন্নাল্ হামদা, ওয়ান্ নিমাতাহ, লাকা ওয়াল মুলক্  লা শারিকা লাকা । গত ২রা সেপ্টেম্বর ২০১৭ রোজ শুক্রবার ত্যাগের মহিমায় মহিমান্বিত ঈদ -উল-আযহা , যথাযোগ্য মর্যাদা, ধর্মীয় ভাবগাম্ভীর্য ও আনন্দ-উচ্ছ্বাসের মধ্যদিয়ে যুক্তরাষ্ট্রের ওয়াশিংটন ডিসিতে উদযাপিত হয়েছে । বাঙ্গালী অধ্যুষিত এলাকা আরলিংটন ভার্জিনিয়ায় বাংলাদেশীদের তত্বাবধানে পরিচালিত বাইতুল মোকাররম জামে মসজিদে বিভিন্ন দেশের মুসলিম সম্প্রদায় তাদের দ্বিতীয় বৃহত্তম ধর্মীয় উৎসব ঈদুল আযহার নামাজ আদায় করেন।

২০১২ সাল থেকেই প্রবাসী বাংলাদেশীদের তত্বাবধানে ২১১৬ সাউথ নেলসন স্ট্রিট, আরলিংটন, ভার্জিনিয়ায় মসজিদটিতে নামাজ, আল্ কোরআন শিক্ষা, ঈদের নামাজ অনুষ্ঠিত হয়ে আসছে। এবছর বাইতুল মোকাররম জামে মসজিদে ঈদ-উল-আযহার নামাজ যথাক্রমে সকাল ৮.০০ টা, সকাল ৯.০০ টা, সকাল ১০.০০ টায় অনুষ্ঠিত হয়।

ঈমামতি করেন যথাক্রমে সকাল আটটায় ইমাম এওয়াইস আহমেদ, সকাল নয়টায় হাফেজ আইমান শাহ এবং সকাল দশটায় হাফেজ নাজির কাজী । ঈদ-উল-আযহার নামাজ শেষে বিশ্ব মানবতার শান্তি কামনায় মোনাজাত করা হয়। ঈদের নামাজে প্রবাসী বাংলাদেশী ছাড়াও পৃথিবীর অন্যান্য মুসলিমদের অংশগ্রহণ লক্ষনীয় , নামাজ শেষে সকলে কোলাকুলি ও সৌহার্দ বিনিময় করেন।

সরকারীভাবে অনুমতি থাকায় যুক্তরাষ্ট্রের বিভিন্ন স্থানে মুসলিম সম্প্রদায় কুরবানী দিয়ে থাকেন। বৃহত্তর ওয়াশিংটন ডিসিতে ৪ থেকে ৫ জায়গায় কুরবানী দেয়া হয় বলে জানা যায়। যারা কুরবানী দেয়ার নিয়ত করেন, তারা সাধারণত প্রথম জামাত আদায় করেই কুরবানীর উদ্দেশে গরু-ছাগলের খামারে রওনা দিয়ে থাকেন। হযরত ইব্রাহীম (আঃ) এর সময় থেকেই কুরবানীর প্রচলন, বিশ্বের মুসলিম সম্প্রদায় যার যার সাধ্যমতো কুরবানী দিয়ে থাকেন । যেহেতু এবছর বন্যায় বাংলাদেশের বিভিন্ন জেলা ক্ষতিগ্রস্ত হয়েছে এবং দেশের দরিদ্র জনগোষ্ঠী মানবেতর জীবন যাপন করছে, তাই প্রবাসী বাংলাদেশীদের অনেকেই কুরবানী না দিয়ে বন্যার্তদের সাহায্য সহযোগিতার হাত বাড়িয়েছেন।

ঈদ মানে আনন্দ। ঈদ মানে খুশির জোয়ার। ঈদ মানে একে অপরের প্রতি ভালবাসা, ভাতৃত্ববোধ, সহমর্মিতা ও সহযোগিতার অপূর্ব বন্ধন । এই আনন্দ ও উৎসব মুসলিম উম্মাহর জীবনে বয়ে আনে খুশীর বন্যা , ভুলিয়ে দেয় সকল বিভেদ ।

(0)

Washington Bangla
By Washington Bangla September 3, 2017 14:59