ওয়াশিংটনস্থ বাংলাদেশ দূতাবাসে ৪৬তম সশস্ত্র বাহিনী দিবস উদযাপিত

Washington Bangla
By Washington Bangla November 22, 2017 02:58

ওয়াশিংটনস্থ বাংলাদেশ দূতাবাসে ৪৬তম সশস্ত্র বাহিনী দিবস উদযাপিত

ওয়াশিংটন: যথাযথ মর্যাদা ও উৎসাহ উদ্দীপনার মধ্য দিয়ে ২১ নভেম্বর মঙ্গলবার ওয়াশিংটনস্থ বাংলাদেশ দূতাবাসে ৪৬তম সশস্ত্র বাহিনী দিবস পালিত হয়। ১৯৭১ সালের ২১শে নভেম্বর বাংলাদেশের গৌরবোজ্জ্বল স্বাধীনতা সংগ্রামে সেনা, নৌ ও বিমানবাহিনী যৌথভাবে পাকিস্তান হানাদার বাহিনীর বিরুদ্ধে আক্রমণ পরিচালনা করে। এ দিনটির স্মরণে প্রতিবছর বাংলাদেশ সশস্ত্র বাহিনী দিবস হিসেবে পালন করে থাকে।

এ উপলক্ষে বাংলাদেশ দূতাবাস বঙ্গবন্ধু অডিটরিয়ামে এক সংবর্ধনা অনুষ্ঠানের আয়োজন করে। অনুষ্ঠানে প্রধান অতিথি হিসাবে উপস্থিত ছিলেন জয়েন্ট গ্লোবাল পলিসি এন্ড পার্টনারশীপস এর ডেপুটি ডাইরেক্টর যুক্তরাষ্ট্র বিমান বাহিনির ব্রিগেডিয়ার জেনারেল হুবি সি হেগভেট। অনুষ্ঠানে যুক্তরাষ্ট্রে নিযুক্ত বাংলাদেশের রাষ্ট্রদূত মোহাম্মদ জিয়াউদ্দিন এবং প্রতিরক্ষা অ্যাটাচি ব্রিগেডিয়ার জেনারেল মোহাম্মদ শামসুজ্জামান, এনডব্লিউসি, পিএসসি, আগত আমন্ত্রিত অতিথিদের উদ্দেশ্যে স্বাগত বক্তব্য রাখেন ।

অনুষ্ঠানের শুরুতেই বাংলাদেশ ও আমেরিকার জাতীয় সঙ্গীত পরিবেশন করা হয়। যুক্তরাষ্ট্র বিমান বাহিনির ব্রিগেডিয়ার জেনারেল হুবি সি হেগভেট তার শুভেচ্ছা বক্তব্যে বাংলাদেশ আমেরিকা বন্ধুত্বপূর্ণ সম্পর্কের কথা উল্লেখ করে বলেন, যুক্তরাষ্ট্র এবং বাংলাদেশের মধ্যে বন্ধুত্বপুর্ণ সম্পর্ক বৃদ্ধি দিনে দিনে বৃদ্ধি পেয়েছে। বিশেষ করে অপারেশন ডেজার্টে বাংলাদেশ সেনাবাহিনির অংশগ্রহন এই সম্পর্ককে আরো গভীরতম করেছে। তিনি বলেন, দুর্যোগ মোকাবেলায় আমেরিকা বাংলাদেশ যৌথ সামরিক মহড়া সহ বিভিন্ন পর্য্যায়ে দুই দেশ বন্ধুত্বপূর্ণ সম্পর্কের মধ্য দিয়ে কাঁধে কাঁধ মিলিয়ে কাজ করে যাচ্ছে। জাতিসংঘ শান্তি বাহিনিতে বাংলাদেশ সেনাবাহিনির সদস্যদের অংশগ্রহন এবং হারিক্যান ক্যাটরিনার সময় বাংলাদেশ সরকার ও বাংলাদেশ সামরিক বাহিনির সদস্যদের সহযোগিতার কথা উল্লেখ করে তিনি আরো বলেন, আমেরিকা ও বাংলাদেশের মধ্যে সামরিক ক্ষেত্রেই নয়, দুই দেশের জনগনের মধ্যেও সুসম্পর্ক বজায় আছে যা দিনে দিনে বৃদ্ধি পাচ্ছে।

রাষ্ট্রদূত মোহাম্মদ জিয়াউদ্দিন তাঁর স্বাগত বক্তব্যে সশস্ত্র বাহিনীর সদস্যসহ বাংলাদেশের স্বাধীনতা যুদ্ধে যারা শহীদ হয়েছেন তাঁদের সকলের প্রতি গভীর শ্রদ্ধা জ্ঞাপন করেন। সদ্য স্বাধীনতাপ্রাপ্ত বাংলাদেশে একটি আধুনিক সশস্ত্র বাহিনী গড়ে তুলতে অবিস্মরণীয় অবদানের জন্য তিনি জাতির জনক বঙ্গবন্ধু শেখ মুজিবুর রহমানকে গভীর শ্রদ্ধার সঙ্গে স্মরণ করেন। তিনি বলেন, প্রধানমন্ত্রী শেখ হাসিনার নেতৃত্বে বাংলাদেশ সশস্ত্র বাহিনী প্রাকৃতিক দুর্যোগ মোকাবেলা, অবকাঠামোগত উন্নয়ন, রোহিঙ্গাদের রেজিস্ট্রেশন, ভোটার রেজিস্ট্রেশন এবং কম্পিউটারাইজড জাতীয় পরিচয়পত্র তৈরিতে বিশেষ ভূমিকা পালন করেছে। তিনি আরও উল্লেখ করেন বাংলাদেশ সশস্ত্র বাহিনীর সদস্যগণ জাতিসংঘ শান্তিরক্ষা মিশনে অগ্রণী ভূমিকা পালনের মাধ্যমে বিদেশে বাংলাদেশের ভাবমূর্তি বহুলাংশে উজ্জ্বল করেছে।

স্বাগত ও শুভেচ্ছা বক্তব্য শেষে ৪৫তম সশস্ত্র বাহিনি দিবস উপলক্ষে কেক কাটা হয়। এছাড়া বাংলাদেশের পক্ষ থেকে রাষ্ট্রদূত মোহাম্মদ জিয়াউদ্দীন ও মিসেস জিয়াউদ্দীন ব্রিগেডিয়ার জেনারেল হুবি সি হেগভেট এবং তার স্ত্রীকে উপহার প্রদান করেন। পরে অনুষ্ঠানে আগত অতিথিদের মধ্যে বাংলাদেশী রাতের খাবার পরিবেশন করা হয়।

অনুষ্ঠানে বিভিন্ন দেশের রাষ্ট্রদূত, প্রতিরক্ষা অ্যাটাচী, মার্কিন পররাষ্ট্র দফতর ও পেন্টাগনের উচ্চ পদস্থকর্মকর্তা, মিডিয়া প্রতিনিধি, বিভিন্ন দূতাবাসের সামরিক অ্যাটাসে, কর্মকর্তাবৃন্দ, যুক্তরাষ্ট্রে বসবাসরত বাংলাদেশ সশস্ত্র বাহিনীর অবসরপ্রাপ্ত অফিসার, প্রবাসী বাংলাদেশি এবং বাংলাদেশ দূতাবাসের সকল কর্মকর্তা কর্মচারিসহ অনেক অতিথি উপস্থিত ছিলেন।

(9)

Washington Bangla
By Washington Bangla November 22, 2017 02:58
Write a comment

No Comments

No Comments Yet!

Let me tell You a sad story ! There are no comments yet, but You can be first one to comment this article.

Write a comment
View comments

Write a comment

Your e-mail address will not be published.
Required fields are marked*